চাটখিলে নতুন বই বিতরণের মধ্যে দিয়ে বছর শুরু

মাইনউদ্দিন বাঁধন::  আজ শনিবার চাটখিল পৌরসভা ও ইউনিয়ন এর স্কুল গুলোতে শুরু হচ্ছে নতুন বছর, নতুন শিক্ষাবর্ষ। প্রতিবছরের মত এই দিনে সারা দেশের সাথে চাটখিলেও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে উৎসব করে শিক্ষার্থীদের হাতে বিনা মূল্যের পাঠ্যবই তুলে দেওয়া হলেও করোনার সংক্রমণের কারণে গতবারের মতো এবারও উৎসব করে বই দেওয়া হচ্ছে না। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো ভিন্ন ভিন্ন সময়ে বিভিন্ন শ্রেণির শিক্ষার্থীদের হাতে বই দেবে।

বাংলাদেশের শিক্ষা মন্ত্রণালয় একেকটি শ্রেণির শিক্ষার্থীদের ভাগ করে বিভিন্ন দিনে বই দেওয়ার জন্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোকে নির্দেশ দিয়েছে বলে জানা গেছে।

চাটখিল উপজেলার প্রাণকেন্দ্র ভীমপুর বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয়ের সভাপতি বেলায়েত হোসেন দৈনিক চাটখিলবার্তার অনলাইনকে বলেন, তাঁরা শিক্ষা উপজেলা শিক্ষা অফিসে নির্দেশনা অনুযায়ী বিভিন্ন দিনে বই দেবেন।

একই রকম তথ্য দিয়েছেন পরকোট দশঘরিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের সভাপতি সফিকুর রহমান ।

এদিকে বাংলাদেশ শিক্ষামন্ত্রনালয় কর্তৃক নতুন সময়সূচি অনুযায়ী, ২০২২ সালের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের জন্য সপ্তাহে প্রতিদিন চারটি বিষয়ের ওপর ক্লাস নিতে হবে। দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের সপ্তাহে প্রতিদিন তিনটি বিষয়ের ক্লাস নেওয়া হবে। অষ্টম ও নবম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের জন্য সপ্তাহে দুদিন ক্লাস হবে। এই দুদিনের প্রতিদিন তিনটি করে বিষয়ের ওপর ক্লাস নিতে হবে। ষষ্ঠ ও সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের জন্য সপ্তাহে এক দিন তিনটি বিষয়ে ক্লাস নেওয়া হবে। প্রাথমিকে শ্রেণি কার্যক্রম হবে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের নির্দেশনা অনুযায়ী।

এর আগে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি বলেছিলেন, করোনার সংক্রমণ পরিস্থিতি মার্চ পর্যন্ত দেখা হবে। এর মধ্যে সংক্রমণ না বাড়লে তারপর শিক্ষা কার্যক্রম পুরোপুরি স্বাভাবিক হতে পারে। শিক্ষামন্ত্রীর ঘোষণার সঙ্গে মিল রেখেই স্বল্প পরিসরে ক্লাস চালিয়ে যাওয়ার সময়সূচি ঘোষণা করা হয়েছে, তবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোকে নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় অনলাইনেও শ্রেণি কার্যক্রম চলমান রাখতে হবে।

Leave a Reply

%d bloggers like this: