৩৮তম বিসিএস পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছে চাটখিলের ফাইজা বিসরাত হোসেন

বাবা-মা ও বোন সহ পরিবারের সাথে সাথে ফাইজা বিসরাত হোসেন।ছবি-ফেইজবুক

মাইনউদ্দিন বাঁধন: বাবা ছিলেন ব‌্যাংকার, বাংলাদেশ ব্যাংকের জিএম (জেনারেল ম্যানেজার) হওয়ার পর তিনি চাটখিল উপজেলার মানুষের পাশে থাকার অপ্রাণ চেষ্টা চালিয়েছেন। কিন্তু সামান‌্য কয়েকদিন বাংলাদেশ ব্যাংকের জিএম হওয়ার পর পরই ক্যান্সারের কাছে জীবনের পরাজয় মেনে নিতে হয়েছে। ২০১৯ সালের ১১ আগষ্ট মৃত্যুবরণ করেন চাটখিলের এই  কৃতিসন্তান। তিনি চাটখিল উপজেলার ৪নং বদলকোট ইউনিয়নে জন্ম গ্রহণ করা বাংলাদেশ ব্যাংকের জেনারেল ম্যানেজার বেল্লাল হোসেন। বাবার মৃত্যুর পর তারই যোগ্য সন্তান হিসেবে এই বার তার মেয়ে নিজেই রেখেছেন যোগ্যতার স্বাক্ষর। বাংলাদেশ সরকারের ৩৮তম বিসিএস পরীক্ষায় বদলকোট গ্রামের ফাইজা বিসরাত হোসেন উত্তীর্ন হয়ে Assistant Controller of Food (General Cadre Food) পদে নিয়োগ পেয়েছেন। তাঁর এই সাফল্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেকেই শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

চাটখিলবার্তার সাথে ফাইজা বিসরাত হোসেন বলেন,  বাবাই আমাদের অনুপ্রেরণা,  আমি যখন বিসিএস পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করি তখন বাবা ছিল জীবিত। মেয়ে বিসিএস পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করবে এমন কথাই তিনি কাউকে বলেন নাই। আমাকে শুধু বার বার বলতেন,  নিজের যোগ্যতার ফলাফলই হলো আসল পাওয়া। আমার বাবার দোয়াই আজকে আমার এই সাফল্য।

 

বাবার সাথে ছোট ফাইজা বিসরাত হোসেন।ছবি-ফেইজবুক

বাবাকে নিয়ে নিজের ফেইজবুক ফেইজে তিনি একটি স্ট্যাটাস দিয়েছে সেখানে তিনি লিখেছেন-

বাবা,

আমি তোমাকে মারাত্মক ভালোবাসি।।এটা হয়ত তুমি বুঝো,এজন্য আমাকে এত বকো,আবার আমাকে নিয়ে সবচেয়ে বেশি স্বপ্ন দেখ,আমার উপর অভিমান ও তোমার বেশি…

তোমার দেখা অনেক স্বপ্নই আমি পূরণ করতে পারিনি,সবসময় নিজের চাওয়া কে প্রাধান্য দিয়েছি,,সেটা নিয়ে আফসোস ও কম না..

আমার সময়টাকে reverse করে দিতে ইচ্ছে করে বাবা, সবসময় করত, ফেলে আসা অসংখ্য স্মৃতি একবার হলেও ফিরে পেতে ইচ্ছে হয়,মাঝে মধ্যে জীবনের এতসত জটিলতা আমার প্রায় দম বন্ধ করে দেয় একদম….