হায়রে ইমান! চাটখিলে বিভিন্ন মসজিদের সভাপতিরাই বেইমান!!!

পাঁচ ওয়াক্ত না পারুক, জোহর আছর ও মাগরিব তিন ওয়াক্ত পড়তে পারলে তিনি দাবিদার হয়ে যায় মসজিদের সভাপতি পদে। এ সাথে বয়স যদি ৪০ থেকে ৪৫ কোটায় হয় তাহলেতো কথা নাই। প্রয়োজনে লভিং তদবির করে হলেও ঠিকই হয়ে যাবেন মসজিদের সভাপতি। তার পর দিতে পারবেন না মসজিদের উত্তোলনকৃত টাকার সঠিক হিসাব, পারেনা সঠিক পরিচালা, মানুষ দেখানো তিন ওয়াক্ত নামাজ ব্যতিত অন্য নামাজের তো খবরই রাখেনা। তবু সাধারন মানুষের কিছু বলার নেই কারন তিনি মসজিদের সভাপতি। এধরনের সভাপতিদের কর্তৃতে চলছে চাটখিল উপজেলার পাড়া- মহোল্লার মসজিদ গুলো। হায়রে ইমান, যে খানে মসজিদের সভাতি গুলো বেইমান!!!