স্কুলছাত্র আবু সাকের শাহিন হত্যা মামলার রায় দিয়েছে আদালত।

বুধবার বিকালে জেলা ও দায়রা জজ সালেহ উদ্দিন আহমদ এ রায় ঘোষণা করেন বলে জানান জেলা জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) গুলজার আহমেদ জুয়েল।

দণ্ডিরা আব্দুল মোতালেব দুলাল, আব্দুল কুদ্দুছ মাখন ও মহসিন আলী ফারুক; তারা সেনবাগ উপজেলার পশ্চিম আহাম্মদপুর গ্রামের বাসিন্দা।

২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি রাতে স্থানীয় হাজী মোকছেদুর রহমান মুসলিম উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্র আবু সাকের শাহিনকে মোবাইলফোনে নিয়ে কুপিয়ে হত্যা করা হয়।

এ হত্যার পরদিন শাহিনের বাবা সেনবাগ উপজেলার পশ্চিম আহাম্মদপুর গ্রামের মোরশেদ আলম বাদী হয়ে সাতজনকে আসামি করে থানায় মামলা করেন।

পিপি গুলজার আহমেদ জানান, তদন্ত শেষে মামলার এজাহারভুক্ত চার আসামিকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেয় পুলিশ। শুনানি শেষে বুধবার তিন আসামিকে যাবজ্জীবন ও এক আসামিকে অভিযোগ থেকে অব্যাহতি দেন বিচারক।

রায়ে সন্তোশ প্রকাশ করেন মামলার বাদী নিহত স্কুলছাত্র শাহিনের বাবা মোরশেদ আলম।

রায় ঘোষণার সময় সাজাপ্রাপ্ত আসামিদের মধ্যে আব্দুল কুদ্দুছ মাখন ও অব্যাহতিপ্রাপ্ত আসামি সেলিনা আক্তার মুক্তা আদালতে উপস্থিত ছিলেন। অপর আসামিরা এখনও পলাতক।