শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নাকি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান!!!

একজন মানুষ যেমন সোজা হয়ে দাড়াতে হলে তার মেরুদন্ড প্রয়োজন তেমনি একটা জাতি যদি পৃথিবীর বুকে মাথা উঁচু করে দাড়াতে চায় তবে তারও মেরুদন্ড প্রয়োজন। আর আমরা সবাই জানি শিক্ষাই জাতির মেরুদন্ড। শিক্ষার উন্নতি ছাড়া জাতির উন্নতির কথা চিন্তা করা যায় না। কিন্তু কিছু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বর্তমানে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে রূপ নিচ্ছে। তারা শিক্ষার চেয়ে ব্যবসার দিকটাকেই বেশী গুরুত্ব দিচ্ছেন| অসহায় ছাত্রদের কাছ থেকে হাতিয়ে নিচ্ছেন কষ্ঠার্জিত টাকা। শুধু স্কুলের বিভিন্ন র্কাযক্রমের ফি নিয়ে তারা থামছে না। চাটখিলের প্রায় সব প্রাইমারী স্কুল ও উচ্চ মাধ্যমিক সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান নিম্নমানের সহায়ক ও ব্যাকরণ বই পাঠ্য করে বই কোম্পানীদের কাছ থেকে হাতিয়ে নিচ্ছে লক্ষ লক্ষ টাকা। অন্যদিকে ঐ বই সমূহের মূল্য ও চড়া। মার্কেট গুরে দেখা যায় সরকার কর্তৃক শিক্ষার্থীদের দেওয়া ৬ষ্ঠ শ্রেণির ১১-১৩ বইয়ের সহায়ক বইয়ের মূল্য ৫০০-৬০০ টাকার মধ্যে হলে ও উক্ত ক্লাসের গ্রামার ও ব্যাকরণ ২টি বইয়ের মূল্য ৭০০-৮০০ টাকা।বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষদের সাথে কথা বলে জানা যায় সহায়ক বইয়ের জন্য কোম্পানী গুলোর কাছ থেকে এক ভাগে, গ্রামার ও ব্যাকরণ বইয়ের জন্য আরেক ভাগে স্কুলের প্রধানরা র্অথ আদায় করে থাকে। অভিভাবকরা জানায় উক্ত ব্যাপার গুলো আমলে নিয়ে স্কুলের পড়ালেখার মান বৃদ্ধির জন্য কর্তৃপক্ষকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া উচিত। জৈনিক লেখক- চাটখিল থেকে