ব্যবসায়ী থেকে সমাজ সেবক চাটখিলের মেহেদী হাসান রুবেল ভুঁইয়া

আনোয়ার পারভেজ : চাটখিল বাজারের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও তরুণ সমাজ সেবক মেহেদী হাছান রুবেল ভূঁইয়া, বয়স ৩৬।  শৈশব থেকেই তিনি পরিচিত একজন সমাজ সেবক, নানা সামাজিক আর সাংস্কৃতিক সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত হয়ে, জড়িয়ে পড়েন সমাজ সেবার কাজে। সমাজ সেবা ও নানামূখী সাংগঠনিক কার্যাবলীর বলিষ্ঠ নেতৃত্বে তিনি হয়ে ওঠেন সবার শ্রদ্ধার পাত্র।  ৬ নভেম্বর  আমরা যাই তার বাসাতে, আড্ডাপ্রিয় রুবেল ভুঁইয়া প্রিয় কাউকে পেলেই আনন্দে উদ্বেল হয়ে ওঠেন। সেদিনও আমাদের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে নিজের জীবনের গল্পে ডুব দিলেন তিনি। বাজারের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সমাজ সেবক হাসানুজ্জামান ভুঁইয়া (সাব মিয়া) ও ফাতেমা বেগমের দ্বিতীয় সন্তান রুবেল ভুঁইয়া, জন্ম চাটখিল পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ড ধামালীয়া গ্রামে,  ১৯৮৪ সালের ১৭ই জুন। শিক্ষাজীবন শুরু উপজেলার খ্যাতনামা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ভীমপুর বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয় ও কারিগরি কলেজে, এই বিদ্যালয় থেকে এস.এস.সি পরীক্ষা উর্ত্তীন্ন হয়ে একই প্রতিষ্ঠান থেকে এইচ.এস.সি পাশ করেন। চাটখিল পাঁচগাঁও মাহবুব সরকারী কলেজ থেকে গ্রেজুয়েশন শেষ করেন। মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক এবং গ্রেজুয়েশন শেষ করে তিনি চাটখিল বাজারে ব্যবসায় শুরু করেন, কিছুদিন যেতেই চাটখিল জুড়ে তৈরি হয় তাঁর খ্যাতি। রুবেল ভুঁইয়া চাটখিলবার্তার অনলাইনেকে বলেন, ‘জন্মপর থেকেই এই চাটখিলের মাটির সাথে আমার নীবিড় সম্পর্ক, স্থানীয় মানুষের সেবা, শিক্ষার মান-উন্নয়ন, সামাজিক উন্নয়ন, প্রাতিষ্ঠানিক উন্নয়ন সহ নানামূখী কার্যবলীর মাধ্যমে আমি নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে চাই। এই চাটখিল আমার প্রাণ, চাটখিল এর সেবা করাই আমার অঙ্গীকার ’। মেহেদী হাসান রুবেল ভুঁইয়া ব্যবসার পাশাপাশি বিভিন্ন সামাজিক ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের গুরুত্বপূর্ণ পদে থেকে সামাজিক কার্যক্রম করে যাচ্ছেন। রাজনৈতিক জীবনে  রুবেল ভূঁইয়া, বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সংগঠন বাংলাদেশ আওয়ামিলীগের একজন কর্মী হিসাবে কাজ করছেন এবং বিগত সময়ে তিনি চাটখিল সরকারি কলেজ ডিগ্রি শিক্ষাবর্ষ ২০০৩-২০০৪ ব্যাচের ছাত্রলীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। ২০১০ সালে চাটখিল বাজার বণিক সমিতির নির্বাচনে উনি সাধারণ সম্পাদক পদে ভোট করেন। একজন পরিচ্ছন্ন মানুষ হিসাবে রুবেল ভূঁইয়া  চাটখিল বাজারের সর্বস্তরের ব্যবসায়িদের আস্থা অর্জন করেছেন।