নিজের গায়ে নিজেই আগুন দিয়ে আত্মহত্যা করেছে।

নোয়াখালীর সুবর্ণচরে সেতারা বেগম (৩৫), নামের এক গৃহবধূ নিজের গায়ে নিজেই আগুন দিয়ে আত্মহত্যা করেছে।

বুধবার দুপুর দেড়টার দিকে উপজেলার চরজুবলী ইউনিয়নের দক্ষিণ কচ্ছপিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত সেতারা বেগম ওই গ্রামের সাখায়েত উল্যার স্ত্রী এবং তিন সন্তানের জননী ছিলেন। তিনি মানসিক সমস্যায় ভুগছিলেন।

স্থানীয়দের ভাষ্যমতে, অনেক আগ থেকে মানসিক সমস্যায় ভুগছিলেন গৃহবধু সেতারা বেগম। এরআগেও দুই বার আত্মহত্যা করা চেষ্টা করেছিলেন সেতারা। বুধবার দুপুরে পরিবারের লোকজনের অজান্তে বাড়ীর পাশে খড়ের আগুনের মধ্যে লাফ দেয় সেতারা। পরে অগ্নিদগ্ধ অবস্থায় পরিবারের লোকজন উদ্ধার করে সেতারাকে সুবর্ণচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

নিহতের বড়ভাই আবদুল কাদের বলেন,সতের বছর আগে সাখাওয়াতের সঙ্গে সেতারার বিয়ে হয়। তাদের ঘরে তিন সন্তান রয়েছে। বিয়ের পর থেকে সেতারার মানসিক সমস্যা দেখা দেয়।সে দীর্ঘদিন যাবত মানসিক চিকিৎসা নিচ্ছেন। কয়েকদিন আগেও আমাদের বাড়িতে চিকিৎসা করিয়েছি। মানসিক ভারসাম্যহীন হওয়ায় ভাত রান্নার জ্বালানির জন্য নেয়া খড় ও গাছের শুকনো পাতার মধ্যে নিজে আগুন দিয়ে নিজেই লাফ দিয়ে আত্মহত্যা করেন।

চরজব্বার থানার ভারপ্রাপ্ত অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাহেদ উদ্দিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, মানসিক সমস্যার কারণে আত্মহত্যা করেছে। নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ পাঠানো হয়েছে।