নরেন্দ্র মোদিকে আমন্ত্রণ জানানোয় বঙ্গবন্ধু কবরে কাঁদছেন-জাফরুল্লাহ চৌধুরী।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে আমন্ত্রণ জানানোয় বঙ্গবন্ধু কবরে কাঁদছেন বলে মন্তব্য করেছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা জাফরুল্লাহ চৌধুরী।

সোমবার বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে সীমান্তে হত্যার প্রতিবাদে পতাকা সমাবেশে অংশ নিয়ে এ মন্তব্য করেন জাফরুল্লাহ।

নরেন্দ্র মোদিকে ‘সাম্প্রদায়িক ব্যক্তিত্ব’ বলে আখ্যা দিয়ে জাফরুল্লাহ বলেন, ‘মোদিকে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা হিসেবে আমন্ত্রণ করে সরকার জনসাধারণকে তো অপমান করেছেই, সবচেয়ে বেশি অপমান করেছে বঙ্গবন্ধুকে। বঙ্গবন্ধু কবরে বসে কাঁদছেন।’

সমাবেশে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের এই প্রতিষ্ঠাতা অভিযোগ করেন, ’এই মার্চ মাসেই বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন, “আমি তোমাদেরই লোক।” আর আজকে তার দলের সরকার বলছে, আমরা ভারতের লোক।’

জাফরুল্লাহ বলেন, ‘আজকে আমাদের সবার দায়িত্ব হবে জোরদারভাবে বলা যে, সাম্প্রদায়িক ব্যক্তিত্ব মোদিকে বাংলাদেশে পা রাখার আগেই ঘোষণা দিতে হবে, সীমান্তে সব হত্যাকাণ্ড বন্ধ হবে। যতগুলো হত্যাকাণ্ড হয়েছে, ভারত প্রত্যেকটির ক্ষতিপূরণ দেবে। আমাদের নদীর পানির ন্যায্য হিস্যা দেবে। ভারতীয় হাইকমিশনের সামনের রাস্তাটিকে তারাই ফেলানী রোড নামে নামকরণ করবে, যাতে অন্যায় আচরণের জন্য তারা যে অনুতপ্ত তা প্রমাণ হবে।

জাফরুল্লাহ চৌধুরী আরও বলেন, ‘এই কাজগুলো না করলে মোদিকে বাংলাদেশের মাটি স্পর্শ করতে দেওয়া উচিত হবে না। ক্ষমা ভিক্ষা করে মোদি বাংলাদেশে ঢুকবেন, তার আগে নিশ্চয়ই নয়।’