জুনিয়র-সিনিয়র দ্বন্দ্বের জের ধরে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ।

নোয়াখালী সদর উপজেলার অশ্বদিয়া ইউনিয়নের জুনিয়র-সিনিয়র দ্বন্দ্বের জের ধরে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়, এ সময় উভয় পক্ষ একে অপরকে কুপিয়ে চারজনকে আহত করে।

বুধবার (৪মার্চ) রাত ৮টার দিকে অশ্বদিয়া ইউনিয়নের আইয়ুবপুর গ্রামের মাঠখোলা এলাকায় মনুর বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন, মো. জাবেদ, নিজাম উদ্দিন, মো. আকরাম ও আরমান হোসেন। এদের মধ্যে জাবেদ ও নিজামকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে। আকরামকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ও আরমানকে বেসরকারি একটি হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, আহতরা প্রত্যেকে ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। এলাকায় পিয়াস ও আরমান নামে দু’জনের মধ্যে জুনিয়র সিনিয়র নিয়ে দ্বন্দ্বের জেরে বিরাজ করছে। তারা দুইজন একই বাড়ির একে অপরের চাচাতো ভাই। বিকালে দুইজনের মধ্যে হাতহাতি হয়।

এক পর্যায়ে পিয়াসের কয়েকজন বন্ধু রাতে আরমানের ঘরের সামনে গিয়ে তাদের দরজা-জানালায় ভাঙচুর করার চেষ্টা করে। আরমান ও তার ছোট ভাইসহ পরিবারের লোকজন ঘর থেকে বের হলে উভয় পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে এবং একে অপরকে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকে। এতে উভয় পক্ষের চারজন গুরুতর আহত হয়।

তাদের উদ্ধার করে তিনজনকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক দুইজনকে ঢাকায় রেফার করে। একজনকে জেনারেল হাসপাতালে রেখে অস্ত্রপাচার করা হয়। আরমানকে বেসরকারি একটি হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

সুধারাম থানার পরিদর্শক (তদন্ত) টমাস জুনিয়র-সিনিয়র দ্বন্দ্বকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের কথা নিশ্চিত করে জানান, খবর পেয়ে রাতে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। এ ঘটনায় থানায় কোনো পক্ষই এখনও পর্যন্ত অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।