চাটখিলে সকালে করোনা পজিটিভ, দুপুরে মৃত্যু

চাটখিল উপজেলায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আনোয়ার হোসেন (৭০) এক বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে। শনিবার (১১ জুলাই) সকালে রিপোর্ট পজিটিভ আসার পর দুপুরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।
এ নিয়ে জেলায় মোট মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে ৫৪ জন। এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত ব্যক্তি ছাড়া জেলায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন আরও ৪৭ জন।
শনিবার দুপুর ১টার দিকে চাটখিল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সর আইসোলেশন ওয়ার্ডে মারা যান আনোয়ার হোসেন।
চাটখিল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ও করোনা ফোকাল পার্সন ডা. তামজিদ হোসেন জানান, উপজেলার বদলকোর্ট ইউনিয়নের মানিকপুর গ্রামের খামার বাড়ির বাসিন্দা আনোয়ার হোসেন গত ৯ জুলাই বুধবার জ্বর, কাশি ও শ্বাসকষ্টে আক্রান্ত হয়ে অসুস্থ হলে পরিবারের লোকজন তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে। তখন উনার শরীরের অক্সিজেনের মাত্রা অনেক কম ছিল। পরিবারের লোকজন রিস্কবন্ড দিয়ে উনাকে হাসপাতালে ভর্তি করেন।
১০ জুলাই বৃহস্পতিবার উনার শরীর থেকে নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠালে আজ ১১ জুলাই শনিবার সকালে ওই ব্যক্তির শরীরে করোনা শনাক্ত হয়। দুপুর ১টার দিকে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।  উপজেলায় করোনায় মোট মৃত্যু হয়েছে ৫ জনের।
এ দিকে জেলা সিভিল সার্জন ডা. মাসুম ইফতেখার বলেন, নতুন করে জেলায় আরও ৪৭ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। যার মধ্যে সদরে ১৩, সুবর্ণচরে ২, বেগমগঞ্জে ৭, সোনাইমুড়ীতে ৫, কোম্পানীগঞ্জে ১২  ও কবিরহাটে ৮ জন রোগী রয়েছে। আক্রান্তদের মধ্যে পুলিশ, ব্যাংকার, শিশু ও ব্যবসায়ী রয়েছেন। জেলায় মোট আক্রান্ত ২৪৮৭ জন। যার মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ১৪৬২ ও আইসোলেশনে রয়েছেন ৯৭২ জন। মোট আক্রান্তদের মধ্যে সদরে ৭৪৩, সুবর্ণচরে ১৬৬, হাতিয়া ৬২, বেগমগঞ্জে ৬৯৩, সোনাইমুড়ীতে ১৩৮, চাটখিলে ১৪৪, সেনবাগে ১০৬, কোম্পানীগঞ্জে ১৫৬ ও কবিরহাটে ২৭৯ জন।