চাটখিলে বাল্য বিবাহের হিড়ক, উপজেলা নির্বাহী অফিসার নিজেই বন্ধ করলেন বিয়ে!

সাইফুল ইসলাম রিয়াদ : গতকয়েক দিনের ব্যবধানে চাটখিল উপজেলার ৫টি বাল্য বিবাহ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। বদলকোটে সহপাঠিরা, চাটখিলে সহপাঠি, শিক্ষক ও প্রসাশেন উদ্দ্যোগে এবং আজ উপজেলা নির্বাহী অফিসারের উদ্দ্যােগে বন্ধ হলো বাল্য বিবাহ, এই যেন বাল্য বিবাহের হিড়ক। পরীক্ষা এখনো শেষ না হলেও চাটখিল উপজেলার সোমপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের চলমান এসএসসি পরীক্ষার্থী মিতুর বিয়ের প্রস্তুতী চলছিল বেশ জোরে শোরেই। দু’দিন পরেই তার বিয়ে প্রবাসী বর রিয়াদের সাথে। আজ ০২ ফেব্রুয়ারী সোমবার দুপুরে স্কুলের শিক্ষার্থীবন্ধু/সহপাঠিরা তার বাড়ি ছুটে যায় লাল পতাকা নিয়ে তার বাল্য বিয়ের প্রতিবাদে। খবর পেয়ে মিতুর বাড়িতে ছুটে আসেন স্বয়ং চাটখিল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দিদারুল আলম। সংগে ছিলেন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মিজানুর রহমান ভুইয়া সহ অন্যান্যরা। বাল্য বিয়ের কুফল বুঝিয়ে এবং মিতুকে সময়ের আগে বিয়ে না দেয়ার মুচলেকা নিয়ে শেষমেষ ঠেকানো হয় এই বাল্য বিয়ে।