চাটখিলে প্রাইভেট ক্লিনিক ও ডায়াগনষ্টিক সেন্টার ৩৭টি হলেও লাইসেন্স আছে ১টির!

ষ্টাফ রিপোর্টার : চাটখিল উপজেলায় ৩৭টি প্রাইভেট ক্লিনিক ও ডায়াগনষ্টিক সেন্টার থাকলেও শুধুমাত্র একটির লাইসেন্স রয়েছে। এখনো ৩৬টির নেই কোন নবায়নকৃত লাইসেন্স। বাংলাদেশ প্রাইভেট ক্লিনিক ও ডায়াগনষ্টিক সেন্টার ওনার্স এসোসিয়েশন এর বিজ্ঞপ্তিতে জানা যায়, চাটখিলে মোট ৩৭টি প্রাইভেট ক্লিনিক ও ডায়াগনষ্টিক সেন্টার রয়েছে। এগুলো হলো ডাক্তার নোমান হাসপাতাল, ওহাব তৈয়বা মেমোরিয়াল হসপিটাল, চাটখিল সেন্ট্রাল হসপিটাল, আল-বারাকা হাসপাতাল, চাটখিল শিশু হাসপাতাল, চাটখিল ইসলামিয়া হাসপাতাল, চাটখিল স্কয়ার হাসপাতাল, চাটখিল চক্ষু এন্ড জেনারেল হাসপাতাল, এহছানিয়া হাসপাতাল (প্রা:) ডা: জেবুনেচ্ছা জেনারেল হাসপাতাল, নবজাতক ও শিশু হাসপাতাল, চাটখিল অন্ধকল্যাণ হাসপাতাল, দি কম্পিটার ডায়াগন্টিস্টিক সেন্টার (সিডিসি), ইনসাফ ডায়াগনষ্টিক সেন্টার, বয়োকম মেডিকেল সার্ভিস, ইসলামিয়া ডায়াবেটিস সেন্টার, সেবা ডায়গন্টিটিকস্ সার্ভিস, চাটখিল পপুলার ডায়গণ্টিটিক্স , চাটখিল ল্যাব এইড মেডিকেল সার্ভিস (প্রা:), কেয়ার ডা: ল্যাব এন্ড ডা: চেম্বার, মেডিননোভা ডায়াগ: সেন্টার, ফেমাস ডায়াগা: সেন্টার, চাটখিল ডায়াবেটিকস সমিতি, মনির ডেন্ডাল ক্লিনিক, পুনম ডেন্টাল ক্লিনিক, মর্ডান ডেন্টাল ক্লিনিক, সেবা ডেন্টাল ক্লিনিক, আয়েশা ডেন্টল ক্লিনিক, মাষ্টার ডেন্টাল ক্লিনিক, পি,এস ডেন্ডাল ক্লিনিক, চাটখিল পি.জিও থেরাপি সেন্টার, এশিয়া পি.জিএ থেরাপি সেন্টার, দি ইবনেসিনা পি.জিও থেরাপি সেন্টার, গ্রীন ডায়াগন্টিষ্টিক সেন্টার ও ওরো কেয়ার ডেন্টাল সার্জারী।মোট ৩৭টি প্রাইভেট ক্লিনিক ও ডায়াগনষ্টিক সেন্টার থাকলেও শুধু মাত্র ডাক্তার নোমান হাসপাতালের হালনাগাদ লাইসেন্স রয়েছে।
এবিষয়ে বাংলাদেশ প্রাইভেট ক্লিনিক ও ডায়াগনষ্টিক ওনার্স এসোসিয়েশন এর নোয়াখালী সভাপতি ডাক্তার এমএ নোমান চাটখিলবার্তাকে বলেন, স্বাস্থ্য বিভাগীয় নির্দেশনা অনুযায়ী বেসরকারী সকল স্বাস্থ্য সেবা প্রতিষ্ঠান সমুহের লাইসেন্স (রেজিষ্ট্রেশন/নবায়ন) ও সার্বিক ব্যবস্থাপনা ২৩/০৮/২০২০ তারিখের মধ্যে সম্পূর্ণ করতে বলা হয়েছে। অন্যথায় পরবর্তীতে পরিদর্শন ও আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ পূর্বক অনিয়মতান্ত্রিক চলমান প্রতিষ্ঠান বন্ধ/সিলগালা করে দেওয়া হবে। তিনি আরো বলেন, চাটখিলের দুই একটা হাসপাতাল ও ডায়গন্টিষ্টিক সেন্টার ২০১৭-২০১৮ সালের রেজিষ্ট্রিশন নবায়ন করলেও ২০১৮-২০১৯ এবং ২০১৯-২০২০ এর রেজিষ্ট্রিশন নবায়ন করে নাই।
এদিকে বিষয়টি নিয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার দিদারুল আলম বলেন, লাইসেন্স বিহীন ৩৭টির মধ্যে ৩৬টি বিষয়টি মনে হয় সত্য না, তবে উপজেলা স্বাস্থ্য কপ্লেক্সের টিএসও এর সাথে যোগাযোগ করলে মুল বিষয়ে জানা যাবে।
উপজেলার স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা খন্দকার মোশতাক আহমেদ চাটখিলবার্তাকে বলেন, চাটখিলে মোট ৪১টি হাসপাতাল রয়েছে। কোন হাসপাতাল তৈরি করতে হলে অবশ্যই সরকারী কাগজ পত্রবিহীন করতে পারেন না। এই বছর সরকারী ভাবে ঘোষণা রয়েছে অনলাইনে রেজিষ্ট্রিশনের আবেদন করতে। চাটখিলে প্রায় সকল হাসপাতাল ও ডায়াগণিষ্টিকেরা মালিক পক্ষ থেকে অনলাইনে আবেদন করেছে তবে কিছু দিনের মধ্যে সকল বিষয় বিভেচনার মাধ্যমে হাসপাতাল গুলোর রেজিষ্টেশন কার্য্যাবলী সম্পাদন করা হবে।