চাটখিলে নিখোঁজের ১৫ দিন পরে পুকুরে পাওয়া গেল শিশুটির গলিত লাশ

কামরুল কানন :অবশেষে আজ শনিবার নিখোঁজের ১৫ দিন পর শিশু সামিরের লাশ পাওয়া গেল বাড়ির পাশের একটি অব্যবহৃত পুকুর থেকে। প্রতিদিনের মত গত ২০ জানুয়ারী শনিবার দুপুরে সোনাইমুড়ী উপজেলার ঘাসেরখিল (কড়িহাটি সংলগ্ন) গ্রামের সৈয়দ গাজি বাড়িতে মা হারা ২ বছর ৫ মাস বয়সী সামির তার নানাদের ঘরে ঘুমিয়ে ছিল । দুপুর ৩ টার দিকে বিছানায় তাকে দেখতে না পেয়ে চারদিকে ব্যপক খোঁজা- খুঁজি করেও তাকে পাওয়া যায়নি। এমনকি তার সন্ধানে বাড়ীর পাশের পুকুর ডোবাতেও তল্লাাশি চালানো হয়।জিডি করা হয় সোনাইমুড়ী থানায়। এমনি সন্ধানে কেটে যায় গত ১৪টি দিন। সর্বশেষ শনিবার নিখোঁজের ১৫ তম দিনে সকালে বাড়ি থেকে অনেকটা দুরেই একটি পুকুরে সামিরের অর্ধপচা লাশ দেখতে পাওয়া যায়। দুপুর ১২ টার দিকে সোনাইমুড়ী থানা পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে। এ ব্যাপরে তদন্তকারী কর্মকর্তা পুলিশের উপ-পরিদর্শক হারুনুর রশিদ বলেন, দিনে দুপুরে একটি শিশু এভাবে নিখোজ হয়ে যাওয়া এবং এমন দুরবর্তী পুকুরে লাশ পাওয়া সত্যি রহস্যজনক । লাশ ময়না ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। সামিরের ১ মামিকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে বলেও জানিয়েছে পুলিশ। ২ বছর ৫ মাস বয়সী শিশু সামিরের এমন নিখোঁজের ঘটনা এমন লাশ পাওয়াকে এলাকার সবাইও রহস্য জনক বলে মনে করছে এবং একে পরিকল্পিত হত্যাকান্ড বলে ধারনা করছে সবাই। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সামিরের বাবা বাহার উদ্দিনের বাড়ি চাটখিল উপজেলার অমরপুর গ্রামে হলেও সামির মা সালমা আক্তার সামির ৭ মাস বয়সের সময় মৃগী রোগে আক্রান্ত হয়ে পুকুরে ডুবে মারা যাওয়ায় সামি তার নানার বাড়ী খাসের খিল গ্রামে নানীর কাছে থেকে পালিত হয়ে আসছিল।