চাটখিলে ধর্ষণের অভিযোগে ১৬ বছরের কিশোর কারাঘরে

চাটখিল উপজেলায় ঘরে ঢুকে এক মাদ্রাসাছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টায় করা মামলায় পিয়াস (১৬) নামে এক কিশোরকে আটক করে আদালতে পাঠানো হয়েছে। শনিবার (৩১ অক্টোবর) দুপুরে তাকে গ্রেফতার দেখিয়ে তাকে আদালতে পাঠানো হয়।
পিয়াস উপজেলার রামনারায়ণপুর ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের সোবহান বাজারসংলগ্ন দক্ষিণ সাজুনি বাড়ির আয়নাল হকের ছেলে। শুক্রবার রাত ৯টায় সোবহান বাজার সংলগ্ন একই বাড়িতে এ ঘটনা ঘটেছে।
খবর পেয়ে চাটখিল পুলিশ শুক্রবার রাত ১১টার দিকে অভিযান চালিয়ে ওই বাড়ি থেকে অভিযুক্তকে আটক করে।
ওই ভুক্তভোগীর বাবা জানান, তিনি একজন ব্যবসায়ী। সন্ধ্যার দিকে তিনি ব্যবসার কাজে বাজারে ছিলেন। তার স্ত্রী হাঁস-মোরগকে খোয়াড়ে ঢোকানোর জন্য ঘরের বাইরে ছিলেন। ওই সময় তার মেয়ে দশম শ্রেণির মাদ্রাসাছাত্রীকে ঘরে একা পেয়ে তার ছোট ভাইয়ের ছেলে মো. পিয়াস ধর্ষণচেষ্টা চালায়। মেয়ে বাধা দিলে তাকে মারধর করে তার পরনের জামা কাপড় ছিঁড়ে ফেলে। একপর্যায়ে মেয়ের চিৎকারে বাড়ির লোকজন এগিয়ে এলে সে পালিয়ে যায়।
পরিবারের সদস্যরা এ বিষয়ে অভিযুক্ত পিয়াসের বাবাকে জানালে তার বাবা আয়নাল ও পিয়াস ক্ষুব্ধ হয়ে আমার স্ত্রী ও মেয়েকে মারধর করে।
তিনি আরও জানান, পিয়াস আগে থেকেই তার মেয়েকে উত্ত্যক্ত করে আসছিল।
চাটখিল থানার ওসি আনোয়ার হোসেন বলেন, এ ঘটনায় ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে ভুক্তভোগী ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছেন। পুলিশ তাৎক্ষণিক অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত আসামিকে পিয়াসকে আটক করেছে। দুপুরে তাকে গ্রেফতার দেখিয়ে বিচারিক আদালতে পাঠানো হয়।