চাটখিলে ত্রাণের ছড়া-ছড়ি, বিতরণ হচ্ছেনা সঠিক ভাবে!!

স্টাফ রিপোর্টার : করোণায় কাঁপছে বাংলাদেশ সহ পুরো পৃথিবী। এই সময়ে সবচাইতে বেশি বিপাকে চাটখিলের সাধারণ মানুষ গুলো। এই সাধারণ মানুষগুলোর পাশে দায়িছেন সমাজের উচ্চবিত্তের লোকজন। সবচাইতে বেশি দানের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন নোয়াখালী-০১ (চাটখিল-সোনাইমুড়ী) আসনের সাংসদ এইচ এম ইব্রাহিম ও চাটখিলের সন্তান মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত সহকারী ও জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম।
এইচএম ইব্রাহিম, তিনি ব্যক্তিগত ভাবে প্রায় ১০হাজার সাধারণ মানুষের জন্য ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করছেন। এদিকে জাহাঙ্গীর আলম তিনিও ১০হাজার লোকের ত্রাণের ব্যবস্থা করছেন।
দুইজনের মিলে ২০ হাজার লোকের ত্রাণের ব্যবস্থা করেছেন।

এছাড়া পৌর মেয়র মোহাম্মদ উল্যা পাটোয়ারী ব্যক্তিগত পক্ষ থেকে এবং পৌরসভার পক্ষ থেকে চালু করেছেন ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ। থেমে নেই উপজেলার বিত্তবান ব্যক্তিরাও।
কিন্তু এতসব ত্রাণ সঠিক ভাবে বিতরণের মাধ্যমে চাটখিল উপজেলা ও সোনাইমুড়ীর একাংশের জনগণের খাদ্যের সল্পতা থাকার কথা নয়। এতো সব ত্রাণের মাধ্যেও অনেক পরিবার এখনো এসব খাদ্যের আওয়াতায় আসে নাই।

অভিযোগ উঠেছেন ত্রাণ প্রদানকারীরার নিজেরা না থাকায় এবং উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ে যাদের দায়িত্ব দিয়েছেন তারা ত্রাণের ক্ষেত্রে কেউ খোঁজ করছেন পরিবার, কেউ আত্নীয়-স্বজন আবার কেউ কেউ আওয়ামীলীগ, বিএনপি কিংবা রাজনীতিক পরিচয়ের লোক খোঁজছেন।
এসকল বিষয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেকেই পোষ্ট করেছেন – লেখেছেন কেউ একাধিক বার ত্রাণ পেলেও কেউ কেউ এখনো লিষ্টেও আসেনাই।
চাটখিল সাংবাদিক ফোরামের সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান বাবর তার পেইজবুক পেইজে পোষ্ট করেছে- কে যেন ত্রাণের লিষ্ট করছে পৌরসভায় যে বাড়ি আছে সে দিকে কাহারো যেন নজর নেই।

এই ভাবে ত্রাণ বিরতণ করলে সাধারণ মানুষ বিচ্ছিন্ন হতে পারে আমাদের সকলের ত্রাণ থেকে।
অনেকেই মনে করেন, চাটখিলে ত্রাণের ছড়া-ছড়ি, বিতরণ হচ্ছেনা সঠিক ভাবে!!