চাটখিলের একজনের মৃত্যুতে এলাহী কান্ড, ৩ দিন পর জানা গেল করোনা নেগেটিভ!

 

মাইনউদ্দিন বাঁধন: ঘটনাটি ঢাকা মিরপুরের হলেও মৃত ব্যক্তি চাটখিল উপজেলার ৪নং বদলকোট ইউনিয়নের উত্তর পাড়া তায়ীন উল্যা মুন্সী বাড়ির মৃত : আনোয়ার উল্যার ছেলে আহমেদ শরিফ  মুন্সী। পরিবারের বরাত দিয়ে  ঘনিষ্ঠ নাছিরউদ্দিন মুন্সী চাটখিলবার্তাকে বলেন, তিনি দীর্ঘদিন যাবৎ এ্যার্জমায় আক্রান্ত পাশা-পাশি তিনি ডায়াবেটিকস সহ নানা রকম রোগে আক্রান্ত ছিলেন। কিন্তু এরপরের ঘটনাটি ১৫ এপ্রিল থেকে শুরু হয় পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা সহ তিনি সামান্য জ্বরে আক্রান্ত হয়েছে। তারপর নেমে আশে জগতের কালো মেঘ। কোন ধরনের ডাক্তারি সেবাতো পায়নি বরং প্রতিটি হাসপাতালের আঙ্গীনায় ঘুরছে পুরো পরিবারটি। তারপর চিকিৎসা পেয়েছেন তবে ডাক্তার রিপোর্ট তিনি প্রসাব সংক্রান্ত সমস্যা ভুগছেন। এরপর সুস্থ আহমেদ শরিফ  স্বাভাবিক জীবনে ফিরলেও তা স্থায়ী হয়নি বেশি দিন মাত্র ৬দিন পর ২০ এপ্রিল রাতে হঠাৎ করে তিনি শ্বাষ কষ্ট ভুগ করেন। আবার পরিবার শুরু করেছেন এক হাসপাতাল থেকে অন্য হাসপাতাল নিয়ে ঘুরে বেড়ানো, সর্ব শেষ ২১ এপ্রিল দুপুর ১২টায় তিনি ঢাকা মেডিক্যাল হাসপাতালে বিনা চিকিৎসায় দুনিয়ার মায়া ত্যাগ করেন। এইবার ডাক্তার, প্রশাসনের বায়না শুরু। তিনি মারা গেছেন করনায় করতে হবে পরীক্ষা। দীর্ঘ ৩তিন লাশ ঢাকা মেডিক্যালের মর্গে পড়ে থেকে ২৪ এপ্রিল জানা গেল তিনি করোনায় নয় মারা গেছেন অন্য সমস্যায়। মানে করোনার টেষ্টে নেগেটিভ।
এবিষয়ে মৃত ব্যক্তির পরিবারের সদস্য মাইনউদ্দিন জিল্লাল জানিয়েছেন, প্রিয় তায়ীন উল্যা মুন্সী পরিবারঃ
আসসালামু আলাইকুম, এইমাত্র ঢাকা মেডিকেল থেকে আহাম্মদের লাশের সুরতহাল রিপোর্ট পাওয়া গেছে। ঢাকা মেডিকেল থেকে তার মৃত্যুকে সাভাবিক মৃত্যু বলেই নিশ্চিত করেছে। সে করোনা আক্রান্ত ছিলোনা। আমাদের মুন্সি পরিবারের সকলের প্রিয় জনাব কবির আহমেদ মুন্সি আহম্মদের মৃত্যুর পর থেকে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রেখে আসছেন। তিনি আজ নিজ উদ্যেগে মরদেহ আমাদের বাড়ির পারিবারিক গোরস্থানে দাফনের জন্য লাশবাহী গাড়ী সহ সকল ব্যবস্থা সম্পন্ন করেছেন। ঢাকা থেকে আহাম্মদের লাশের গোসল এবং কাফনের কাপড় পরিধান করাইয়া বাড়ীতে প্রেরণ করা হবে। আপনারা আহাম্মদের জন্য দোয়া করবেন আল্লাহ যেন তাকে জান্নাত বাসী করে এবং পাশাপাশি আমাদের প্রিয় কবির মুন্সিকে দোয়া করবেন আল্লাহ যেন ওনাকে নেক হায়াত দান করেন কারণ তিনি সব সময় আমাদের বাড়ির মৃত মানুষ গুলোর দাফন কাফনের মতো এই মহত কাজটি নিজ উদ্যেগে সম্পন্ন করে থাকেন। আল্লাহ তুমি মুন্সী পরিবারের সকল মানুষ গুলোকে এই দুর্যোগে ভালো রেখো।