চক্ষু চিকিৎসাকে আরো গতিশীল ও সহজ সেবায় রুপান্তর করতে কাজ করে যাচ্ছেন লায়ন ক্লাব অপ গোল্ডেন সিটি

মাইনউদ্দিন জিল্লাল সভাপতি লায়ন ক্লাব অপ গোল্ডেন সিটি, চট্টগ্রাম

দেশের সকল ক্লান্তিকালে বিশ্ববিখ্যাত লায়ন্স ক্লাবের পক্ষ থেকে মানব কল্যাণে কার্যকরী ভুমিকা পালন করে আসছে। দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণের কারণে জনসমাগম হবে এ ধরনের সব কর্মসূচি জনগণের কল্যাণে বাতিল করলেও লায়ন্স ক্লাব ইন্টারন্যাশনালের পক্ষ থেকে মানুষকে দিয়েছে অনলাইন কিংবা অফ লাইন সেবা। আগামীতে চক্ষু চিকিৎসাকে আরো গতিশীল ও সহজ সেবায় রুপান্তর করতে কাজ করে যাচ্ছেন লায়ন ক্লাব অপ গোল্ডেন সিটি, চট্টগ্রাম। বর্তমানে লায়ন ক্লাব অপ গোল্ডেন সিটি, চট্টগ্রামের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন চাটখিলের কৃতি সন্তান ৪নং বদলকোট ইউনিয়নের মাইনউদ্দিন জিল্লাল। তিনি বলেন,  লায়ন ক্লাব অপ গোল্ডেন সিটি চট্টগ্রামের সভাপতি হিসেবে আমি চাটখিলের মানুষের পাশে থাকতে চাই। আমাদের প্রতিষ্ঠিত চক্ষু হাসপাতালের কার্যক্রমকে আরো গতিশীল করে তোলাই আমার মূল লক্ষ। তিনি বলেন, আমরা ২০১৮ সালে মোট ২১৯জনকে চক্ষু অপারেশনের মাধ্যমে সুস্থ্য করে তুলেছি। ২০১৯ সালে তার কয়েকগুণ হয়ে ৪৮০ জনকে চক্ষু অপারেশনের কার্যক্রম শুরু করলেও ২২১জনকে অপারেশন সম্পূর্ণ করার পর করোনার মহামারিতে কার্যক্রম স্থাগিত রয়েছ।
গত ১১ই জুলাই চট্টগ্রামস্থ একটি হোটেল লায়ন ক্লাব অপ গোল্ডেন সিটি, চট্টগ্রাম এর হ্যান্ড ওভার ও টেক-ওভার অনুষ্ঠানে তিনি এসকল কথা বলে।

চাটখিলের কৃতিসন্তান হিসেবে, চাটখিল থেকে প্রচারিত প্রথম ও বহুল প্রচারিত দৈনিক চাটখিলবার্তার অনলাইনকে মাইনউদ্দিন জিল্লাল বলেন, আমার জন্ম চাটখিলে, আমি চাটখিলের মানুষের সুখ-দূখের সাথী হিসেবে দীর্ঘদিন পাশে ছিলাম এখানো ধারাবাহিক ভাবে কাছ করছি। তিনি লায়ন্স ক্লাবের সেচ্চাসেবিদের বিষয়ে বলেন, আমাদের সেচ্ছাসেবিরা প্রতিটি মানুষের ঘরে ঘরে ত্রাণ পৌঁছানো ও লাশ দাফন থেকে শুরু করে সব কাজে মানুষের পাশে আছেন। এলাকাভিত্তিক তারা কাজ করে যাচ্ছেন। ঘূর্ণিঝড়ের সময়ও তারা মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন। এখন বৃক্ষরোপণের মাধ্যমে পরিবেশ সংরক্ষণের কর্মসূচি পালন করে যাচ্ছেন। এইভাবে মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাবো। এটাই আমাদের লক্ষ্য।’