গাইবান্ধার “জিনের বাদশা” চাটখিল থানায় আটক

এর আগে শুক্রবার রাতে ‘জিনের বাদশা’ সাইফুল ইসলামকে সোনাইমুড়ী মসজিদের সামনে থেকে আটক করে স্থানীয়রা। পরে তাকে নিয়ে চাটখিল থানায় হস্তান্তর করা হয়।

পুলিশ বলছে, কয়েক বছর আগ থেকে প্রতারক সাইফুল ইসলাম ফোন করে নিজেকে ‘জিনের বাদশা’ পরিচয় দিয়ে ভয় দেখিয়ে আসছে। এ পরিচয় দিয়ে ২০১০ সালের ১০ নভেম্বর চাটখিল উপজেলার পশ্চিম পরকোর্ট গ্রামের হারুন রশিদের স্ত্রী নুর নাহারের কাছ থেকে বিভিন্ন সময়ে এসএ পরিবহন এবং সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে সোহেল ও ভুলু নাম ব্যবহার করে তিন লাখ ৮০ হাজার টাকা প্রতারণা করে হাতিয়ে নেয়।

চলতি বছরের ১০ জানুয়ারি আবার একটি মোবাইল ফোন এবং একটি স্বর্ণের আংটি দেয়ার জন্য নোয়াখালী এলে নূর নাহার ও তার ছেলে প্রতারক সাইফুলকে সোনাইমুড়ি উপজেলা মসজিদের সামনে থেকে আটক করে। পরে তাকে চাটখিল থানা পুলিশের নিকট হস্তান্তর করা হয়।

গত শনিবার দুপুরে চাটখিল থানা পুলিশ জিনের বাদশা সাইফুল ইসলামকে সুধারাম থানায় হস্তান্তর করে। তার বিরুদ্ধে সুধারাম থানায় একটি মামলা করেছেন ভুক্তভোগী নুর নাহার।

সুধারাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নবীর হোসেন জানান, প্রতারক কথিত জিনের বাদশাকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।