করোনা আতংক : চাটখিলে দ্রব্যমূল্যে দামে উদ্ধোগতি

আনোয়ার ফারুভেজ ওমর ফারুক: করোণা ভাইরাসের কারণে চাটখিলে হুটকরেই বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে দ্রব্যমূল্যের দাম। গত ১৭ মার্চ স্কুল কলেজ বন্ধের ঘোষণা দেওয়ার সাথে সাথে হঠাৎ শুরু হয়েছে ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা। অল্প কয়েক ঘন্টার ব্যবধানে চালের দাম বেড়েছে কেজিতে ৬থেকে ১০টাকা। যে চাল বিক্রি হতো ২০০০টাকা ৫০কেজি বস্তা তা এখন ২৬০০ থেকে ৩০০০ টাকা।চালের সাথে ডাল, আদা,রসুন তৈল, লবন, সাবান সহ সকল কিছুর দাম ক্রমেই বাড়ছে। সবজির দাম গড়ে তিন থেকে চার গুণ বেড়েছে। মাছের বাজারেও পড়েছে মূল্যবৃদ্ধির কালো ছায়া।
নিত্যপণ্যের লাগামছাড়া মূল্যবৃদ্ধি সাধারণ মানুষের দুঃখ-কষ্টের কারণ হয়ে দাঁড়াচ্ছে। তাদের আয়ের একটা বড় অংশ চলে যাচ্ছে চাল-ডাল-শাকসবজিসহ নিত্যপণ্য কিনতে। সরকার সবজিসহ নিত্যপণ্যের দাম সহনীয় মাত্রায় রাখতে কেউ যাতে অতি মুনাফার আশ্রয় না নেয়, সে বিষয়ে নজর দিতে পারে। গত কয়েকদিন ধরে চাটখিল পৌরসভার মেয়র মাইকিং করলেও কেউ তোয়াক্কা করছেন না, দ্রব্যমূল্যের দাম যে যার মত করে নিচ্ছে। কিন্তু এসব দ্রব্যের মূল্য কে নির্ধারণ করবে? কে দেখবে যেমন ইচ্ছে তেমন বিক্রয়কারীকে?