এইচ এম ইব্রাহিম এমপির অনন্য উদ্যোগ। দেশে এই প্রথম উপজেলা পর্যায়ে করোনা রোগীদের জন্য প্রস্তুত হচ্ছে আধুনিক আইসোলেশন ওয়ার্ড

বিশেষ প্রতিনিধি  :  বাংলাদেশের উপজেলা পর্যায়ে এই প্রথম কোন  সরকারি হাসপাতালের স্থাপিত হচ্ছে করোনা আক্রান্ত রোগীদের জন্য সকল সুযোগ সুবিধা সহ আইসোলেশন ওয়ার্ড।  নোয়াখালী ১ আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য এইচ এম ইব্রাহিম এর ব্যক্তিগত অর্থায়নে চাটখিল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তৈরি হচ্ছে অত্যাধুনিক সুযোগ-সুবিধা সমন্বিত এই আইসোলেশন ওয়ার্ড। ১০ বেডের এই ওয়ার্ডে থাকবে পুরুষ ও মহিলাদের জন্য আলাদা আলাদা বেড । এই ওয়ার্ডে থাকছে করোনা আক্রান্ত রোগীদের জন্য অত্যাবশ্যকীয় সেন্ট্রাল অক্সিজেন সাপ্লাই এর ব্যবস্থা,  যাতে করে শ্বাসকষ্টে ভোগা করোনা আক্রান্ত রোগীদের অতি দ্রুত অক্সিজেন সরবরাহ করা যায়। এ প্রসঙ্গে সাংসদ এইচ এম ইব্রাহিম জানান , সমগ্র বাংলাদেশে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলেছে, আমার নির্বাচনী এলাকায়ও এ সংক্রমণ বাড়ছে । কিন্তু উপজেলা পর্যায়ে আক্রান্ত রোগীদের জরুরী অক্সিজেন সেবা দেওয়ার পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নেই । উপজেলা পর্যায়ে আক্রান্ত রোগীদের অক্সিজেন সরবরাহ এখন সময়ের দাবি । আমার নির্বাচনী এলাকার রোগীরা যাতে সহজে অক্সিজেন সহ অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা পায় সেজন্য আমি এ উদ্যোগ গ্রহণ করেছি। বৃহস্পতিবার থেকে স্বল্পতম সময়ের মধ্যে এর নির্মাণ কাজ শেষ হবে বলে আশা করছি। তিনি এ কার্যক্রমে পরামর্শ দেওয়ায় নোয়াখালী জেলা প্রশাসক, সিভিল সার্জন , চাটখিল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা কে বিশেষ ধন্যবাদ জানান ।তিনি আরো বলেন, আমার এই প্রচেষ্টায় যদি একটি প্রাণ বেঁচে যায়, যদি একজন সন্তানের মুখে হাসি ফোটে , একটি পরিবারের মুখে যদি হাসি থাকে, তাতেই আমার আনন্দ ।জানা গেছে, ১০ শয্যার এ  ওয়ার্ডে কেন্দ্রীয়ভাবে সিলিন্ডারে ২৮৮০০ লিটার অক্সিজেন সংরক্ষিত থাকবে। যাতে ১০ জন রোগীকে প্রতি মিনিটে ৬ লিটার অক্সিজেন সরবরাহ করা যাবে।  চাটখিল উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এবং উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি জাহাঙ্গীর কবির এ  উদ্যোগের জন্য সাংসদ এইচ এম ইব্রাহিম  কে ধন্যবাদ  জানিয়ে়ে বলেন , তার এই সিদ্ধান্ত সময়োপযোগী এবং যুগান্তকারী, এর মধ্য দিয়ে তিনি আবারো প্রমাণ করলেন তিনি জনগণের কল্যাণে রাজনীতিি করেন এবং জনগণের কল্যাণ করেই  বেঁচে থাকতে চান।