আসুন গোনাহ মাপের আমল সমূহ জেনে নিই

পবিত্র কোরআনে আল্লাহ তায়ালা বলেছেন, ‘লা তাকনাতু মির-রহমাতিল্লাহ। ইন্নাল্লাহা ইয়াগফিরুজ জুনুবা জামিআ।’ হে আমার আদরের বান্দারা! তোমার আমার রহমত থেকে নিরাশ হয়ো না। নিশ্চয় আমি তোমাদের সব গোনাহ ক্ষমা করে দেবো।’ আরেক আয়াতে আল্লাহ তায়ালা বলেছেন, ‘কাফের ছাড়া আর কেউই আল্লাহর রহমত থেকে নিরাশ হয় না।’ বান্দা গোনাহ করবে, আল্লাহ ক্ষমা করবেন। কোরআনে আল্লাহ বলেছেন, ‘নিশ্চয় আল্লাহ ক্ষমা করতে ভালোবাসেন,

হাদিসে কুদসিতে আল্লাহ তায়ালা বলেছেন, মানুষ যদি গোনাহ না করত, তাহলে আমি তাদের জায়গায় এমন এক জাতি সৃষ্টি করতাম, যারা বারবার গোনাহ করত, বারবার ক্ষমা চাইত। হায়! গোনাহ তো সবাই করে, ক্ষমা চায় ক’জনে? উম্মতদরদী নবী মুহাম্মদ (সা.) কিছু আমল শিখিয়েছেন, যেগুলো বিশ্বাসের সঙ্গে হৃদয়ঙ্গম করে পড়ার সঙ্গে সঙ্গে জীবনের সব গোনাহ আল্লাহ তায়ালা ক্ষমা করে দেন। আসুন এরকম কিছু আমল জেনে নিই।

১. প্রত্যেক ফরজ নামাজের পরের আমল:সহি মুসলিমের বর্ণায় এসেছে, রাসুল (সা.) বলেছেন, যে ব্যক্তি প্রত্যেক ফরজ নামাজের পর ৩৩ বার সুবহানাল্লাহ, ৩৩ বার আলহামদুলিল্লাহ, ৩৩ বার আল্লাহু আকবার এবং একবার ‘লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু ওয়াহদাহু লা শারিকা লাহু লাহুল মুলকু ওয়ালাহুল হামদু ওয়াহুয়া আলা কুল্লি শাইয়িন কাদির’ পড়বে, তার জীবনের সব গোনাহ আল্লাহ তায়ালা ক্ষমা করে দেবেন।

২. শোয়ার সময়ের আমল সহি ইবনে: হিব্বানের বর্ণনায় এসেছে, রাসুল (সা.) বলেছেন, শোয়ার সময় কেউ যদি এ দোয়াটি পড়ে, তাহলে তার জীবনের সব গোনাহ আল্লাহ তায়ালা ক্ষমা করে দেবেন। দোয়াটি হলো- ‘লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু ওয়াহদাহু লা শারিকা লাহু লাহুল মুলকু ওয়ালাহুল হামদু, ওয়াহুয়া আলা কুল্লি শাইয়িন কাদির। লা হাওলা ওয়ালা কুওয়াতা ইল্লা বিল্লাহ। সুবহানাল্লাহি ওয়াল হামদু লিল্লাহি ওয়ালা ইলাহা ইল্লাহু ওয়াল্লাহু আকবার।’ অর্থ: আল্লাহ ছাড়া কোনো ইলাহ নেই। তিনি একক। তার কোনো অংশীদার নেই। রাজত্ব একমাত্র তারই। সব প্রশংসা তার। তিনিই সবকিছুর নিয়ন্তা। আল্লাহর আশ্রয় ও সাহায্য ছাড়া কোনো গতি নেই। আল্লাহর পবিত্রতা ঘোষণা করছি। তার প্রশংসা করছি। আল্লাহ ছাড়া কোনো ইলাহ নেই। তিনিই মহান।

৩. সারা দিনের আমল সহি বুখারির: বর্ণনায় এসেছে, রাসুল (সা.) বলেছেন, যে ব্যক্তি দৈনিক ১০০ বার ‘সুবহানাল্লাহি ওয়াবিহামদিহি’ পাঠ করবে, তার জীবনের সব গোনাহ রাব্বুল আলামিন নিজ রহমতের গুণে ক্ষমা করে দেবেন।