এইমাত্র পাওয়া খবর: 
বিজিবি ১. নায়েক সুবেদার মিজানুর রহমান- ০১৭৬৯-৬১৩৩০৫ ২. হাবিলদার রাফিউল আলম- ০১৭২৩-৩৬৬৬০৭ ৩. হাবিলদার মাজেদুল হক - ০১৭৩৫-২৭৭৩৩৩ ৪. হাবিলদার মফিজুর রহমান - ০১৭১৭- ০৩৬১১৪ নির্বাহী ম্যাজিসটেট রুহুল আমিন -  *  চাটখিলবার্তা পড়ুন, চাটখিল সহ বাংলাদেশের সকল খবর জানতে এখনই লগইন করুন: www.chatkhilbarta.net যোগাযোগ- ০১৭১২২৩১৯১২,০১৭১০৬৪০৩৫৫, ইমেইল- news@chatkhilbarta.net  *  চাটখিলবার্তা পড়ুন, চাটখিলের সকল খরব জানুন log in : www.chatkhilbarta.net যোগাযোগ করুন : ০১৭১২২৩১৯১২, ০১৮৩১০১৬৭২০ ইমেই করুন: news@chatkhilbarta.net
শিরোনাম: 
| ২২  অগাস্ট - ২০১৯

মাহমুদুর রহমান বেলায়েত - বীর মুক্তিযোদ্ধা


মাহমুদুর রহমান বেলায়েত। তাঁর পরিচয় লিখে হয়তো বর্ণনা দেয়া যাবেনা।তিনি ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধে মুজিব বাহিনী তথা বি.এল.এফ এর বৃহত্তর নোয়াখালীর অধিনায়ক ছিলেন।তাঁর অগ্রগামী নেতৃত্বে ১৯৭১ সালের ৭ই ডিসেম্বর পাক হানাদাররা নোয়াখালী জেলা থেকে পলায়নে বাধ্য হয়।তিনি ১৯৭০ সালে তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির অন্যতম প্রভাবশালী ছাত্রনেতা ছিলেন।বর্তমান মাননীয় সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সাহেবের ছাত্ররাজনীতির অন্যতম গুরু তিনি।তাঁর জোনের অধীনে ওবায়দুল কাদের সাহেব কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা বি.এল.এফ এর অধিনায়ক ছিলেন।তাঁর সান্নিধ্যে মাননীয় মন্ত্রী সহ আরো বহু রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বের সৃষ্টি হয়েছে যারা বর্তমানে দেশের উচ্চতম পদে আসীন।বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর ১৯৭৩ সালে প্রথম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি নোয়াখালী-১(সেনবাগ-চাটখিল) আসনে আওয়ামীলীগ থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।মাহমুদুর রহমান বেলায়েত ছিলেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ এবং স্নেহভাজন।বঙ্গবন্ধুর ১৯৭২ এর নোয়াখালী সফরে তাঁর অন্যতম সাথী ছিলেন তিনি।তিনি তার রাজনৈতিক জীবনে নোয়াখালী জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন।বর্তমানে রাজনীতি জীবন থেকে তিনি অবসর নিয়ে ঢাকায় থাকেন।স্বাধীনতা যুদ্ধের এই অকুতোভয় সৈনিক ব্যক্তিগত এবং রাজনৈতিক জীবনে সততা এবং নিষ্ঠার পরিচয় দিয়েছেন।রাজনৈতিক নেতৃত্ব সৃষ্টির কারিগর বীর মুক্তিযোদ্ধা মাহমুদুর রহমান বেলায়েত আমাদের বৃহত্তর নোয়াখালীর গর্ব

Powered by চাটখিলবার্তা :: Designed and Developed By Colour Spray Ltd.