এইমাত্র পাওয়া খবর: 
চাটখিলবার্তা, চাটখিলের প্রতিচ্ছবি হিসেবে দীর্ঘ পথ অতিক্রম করেছে, আপনাদের সহায়তা আজকের আমরা, আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।  *  রমজানের পবিত্রতা রক্ষা করুন, আপনার পাশে থাকা হতদরিদ্রদের সহযোগীতায় এগিয়ে আসুন-চাটখিলবার্তা পরিবার-০১৭১২২৩১৯১২, ০১৮৩১০১৬৭২০, ০১৭১০৬৪০৩৫৫  *  চাটখিলবার্তা পড়ুন, চাটখিলের সকল খরব জানুন log in : www.chatkhilbarta.net যোগাযোগ করুন : ০১৭১২২৩১৯১২, ০১৮৩১০১৬৭২০ ইমেই করুন: news@chatkhilbarta.net
শিরোনাম: 
| ২২  নভেম্বর - ২০১৭

প্রতিবেদন

অবৈধ দখলদারদের আধিপত্যের মাধ্যমে চাটখিলে দখল হচ্ছে সরকারী ভূমি

Morning - 5.43   Tuesday   0000-00-00

A- A A+

চাটখিলের ভূমি বিবাদ আমাদের সবার কাছে খুবই পরিচিত বিষয়। এর ফলে প্রতিবছরই বহু লোক প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। বিশেষ করে গ্রামঞ্চলে ও খাস জমিতে বসবাসরত ভূমিহীন কৃষক ও মৎস্যজীবী জনগোষ্ঠী, বিভিন্ন পেশাভিত্তিক ক্ষুদ্র সম্প্রদায়, দরিদ্র আদিবাসী জনগোষ্ঠী এই বিবাদের করুণ শিকার হয়ে আর্থিক ও সামাজিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। এক গবেষণায় দেখা যায়, চাটখিলে প্রতি বছরেই ছোট বড় ভূমি বিবাদের ঘটনা ঘটে। যার মধ্যে প্রত্যক্ষ ভূমি বিবাদের ঘটনাও রয়েছে। গবেষণায় দেখা গেছে, চাটখিল উপজেলাতে প্রতিবছর গড়ে ১০ জনেরও বেশি মানুষ ভূমি বিবাদের ফলে নিহত হয়। এর পেছনের কারণগুলোর মধ্যে খাস জমি ও জলমহালের ওপর অবৈধ দখলদারদের আধিপত্য প্রতিষ্ঠা করার বিষয়টি অন্যতম। সমাজের ভূমিগ্রাসী জোতদার বা দখলদার রাজনৈতিকভাবে আশ্রিত শক্তিশালী যে শ্রেণী রয়েছে মূলত তারাই এই দ্বন্দ্বের মূল কুশীলব। অন্যদিকে এই দ্বন্দ্বের ফলে যারা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে তারা হলো সমাজের দরিদ্র ভূমিহীন জনগোষ্ঠী। বিবাদ, সংঘর্ষ এখানে নিত্যসঙ্গী। সব ধরনের খাস জমিতে ভূমিহীনদের নিরঙ্কুশ অধিকারের কথা বলা হয়েছে রাষ্ট্রের পক্ষ থেকে। কিন্তু নিরঙ্কুশ অধিকারের কথা বলা হলেও উপজেলা সরকারী কর্মকর্তাদের অবিরাম গাফিলতি, দুর্নীতিবাজ ভূমি কর্মকর্তাদের চরম অসহযোগিতা এবং রাজনৈতিক ছদ্মাবরণে জবরদখরকারীদের আস্ফালনের কারণে খাস জমিকে কেন্দ্র করে ভূমিবিবাদ বেড়েই চলছে। আর এই বিবাদে কোনো না কোনোভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হতে হচ্ছে দরিদ্র ভূমিহীনদের। পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদের তথ্যানুযায়ী গত কয়েক বছরে চাটখিলে বিপুল পরিমাণ সরকারি ও বেসরকারি জমি বিভিন্নভাবে বেদখল হয়ে গেছে। অনেক জায়গায় দেখা গেছে সরকারের কাছ থেকে একজন ভূমিহীন যতোটুকু খাস জমি পেয়েছেন তার বিপরীতে আইনি লড়াই করতে গিয়ে সেই ভূমিহীনের তার চেয়ে কয়েকগুণ বেশি টাকা খরচ হয়ে গেছে। সঙ্গতকারণেই বলা প্রয়োজন ভূমিহীনদের তার অধিকার ও লড়াই থেকে নিবৃত্ত করতে ভূমিগ্রাসীদের প্রধানতম একটি অস্ত্র হলো ভূমিহীনদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দেয়া, যাতে আর্থিকভাবে দুর্বল ভূমিহীন আরো ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে ভূমি অধিকারের হাল ছেড়ে দিতে বাধ্য হয়। অন্যদিকে ভূমিগ্রাসীদের কাছে কোনো শ্রেণী বা ধর্মীয় ভেদাভেদ নেই। জমি দখল করার কোনো ন্যূনতম সুযোগ থাকলেই তারা সেটা দখল করে। চাটখিলে ভূমি নিয়ে দুর্নীতির যে মহোৎসব তা বেশ কয়েকটি তৃণমূল পর্যায়ে। দেশের দুটি মন্ত্রণালয়ের (আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয় এবং ভূমি মন্ত্রণালয়) অধিনে চাটখিল উপজেলার ভূমি অফিস ভূমিসংক্রান্ত বিষয় দেখাশোনা করে থাকে। কিন্তু এদের মধ্যে সমন্বয়হীনতার কারণে দুর্নীতি ব্যাপকভাবে প্রভাব বিস্তার করেছে। জরিপ, নামজারি, রেকর্ড, পর্চা প্রদান প্রভৃতি ক্ষেত্রে সীমাহীন দুর্নীতি বিরাজ করছে বিভিন্ন ভূমি অফিসে। ভূমির মালিকানা বা স্বত্ব লাভে বিভিন্ন শ্রেণীর মানুষ বিভিন্নভাবে চেষ্টা চালিয়ে থাকে। প্রভাবশালীরা তাদের প্রভাবকে এক্ষেত্রে কাজে লাগিয়ে খুব ভালোভাবেই সফল হচ্ছে এবং বঞ্চিত করছে ব্যাপক ভূমিহীন জনগোষ্ঠীকে। কিন্তু ভূমিতে অভিগম্যতার ক্ষেত্রে দরিদ্র মানুষের সুযোগ খুবই কম। খাস জমিতে ভূমিহীনদের অভিগম্যতা আইন স্বীকৃত। কিন্তু প্রভাবশালী ও ভূমিগ্রাসীদের কারণে সেখানে তাদের অভিগম্যতা নেই বললেই চলে।ভূমি বিবাদ নিরসন করা দরকার। সব বিরোধ মিটিয়ে ভূমিহীন, দরিদ্র মানুষকে খাস সম্পদে তাদের আইনসম্মত ও সংবিধান স্বীকৃত অধিকার আদায়ের পথে সহায়তা করা প্রয়োজন। বিবাদ নিষ্পত্তির জন্য দরিদ্রমুখী নীতিমালা প্রণয়নে সরকারকে গবেষণালব্ধ তথ্য প্রদান, ভূমি বিবাদের নেতিবাচক দিক সম্পর্কে সচেতনতামূলক প্রচারণা কার্যক্রম, বিরোধ নিষ্পত্তির বাস্তবমুখী পদক্ষেপ গ্রহণ ইত্যাদির মাধ্যমে দরিদ্র, ভূমিহীন মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠায় কাজ করা যেতে পারে। কিন্তু তাদের অধিকার সম্পর্কে সচেতন করা, উদ্বুদ্ধ করা এবং অধিকার আদায়ের পথকে সুদৃঢ় করার কাজটি করলেই শুধু হবে না। তাদের অধিকার প্রতিষ্ঠায় এবং বিপুল অর্থনৈতিক ক্ষতির হাত থেকে তাদের রক্ষা করতে হলে সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান, বিভিন্ন গবেষণা প্রতিষ্ঠান, সুশীল সমাজ, বিভিন্ন উন্নয়ন সংগঠন এবং উন্নয়নকর্মী সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। রাজনৈতিক অঙ্গীকার ও তার বাস্তবায়নের পাশাপাশি ভূমি প্রশাসন ও ব্যবস্থাপনায় সহজ ও স্বচ্ছ আমলাতান্ত্রিক ব্যবস্থা এবং জবাবদিহিতাও নিশ্চিত করতে হবে বলে মনে করেন বিশেষঞ্চরা

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


News of your area

usericon

Be the First to Commnent

Also on chatkhil.com

fbnglkjhfkhjof
fgjhnghu
fbnglkjhfkhjof
fgjhnghu
fbnglkjhfkhjof
fgjhnghu
fbnglkjhfkhjof
fgjhnghu

প্রতিবেদন

Powered by চাটখিলবার্তা :: Designed and Developed By Colour Spray Ltd.