এইমাত্র পাওয়া খবর: 
রমজানের পবিত্রতা রক্ষা করুন, আপনার পাশে থাকা হতদরিদ্রদের সহযোগীতায় এগিয়ে আসুন-চাটখিলবার্তা পরিবার-০১৭১২২৩১৯১২, ০১৮৩১০১৬৭২০, ০১৭১০৬৪০৩৫৫  *  রমজানের পবিত্রতা রক্ষা করুন, আপনার পাশে থাকা হতদরিদ্রদের সহযোগীতায় এগিয়ে আসুন-চাটখিলবার্তা পরিবার-০১৭১২২৩১৯১২, ০১৮৩১০১৬৭২০, ০১৭১০৬৪০৩৫৫  *  চাটখিলবার্তা পড়ুন, চাটখিলের সকল খরব জানুন log in : www.chatkhilbarta.net যোগাযোগ করুন : ০১৭১২২৩১৯১২, ০১৮৩১০১৬৭২০ ইমেই করুন: news@chatkhilbarta.net
শিরোনাম: 
| ২৫  সেপ্টেম্বর - ২০১৭

প্রতিবেদন

চাটখিল ভূমি অফিসের কর্মচারীদের নিরব চাঁদাবাজি

Morning - 11.14   Thursday   0000-00-00

A- A A+

চাটখিল উপজেলার ভূমি অফিসে কমচারী কতৃক সেবার নামে চলছে নিরব চাঁদাবাজি। সম্পত্তি জবরদখল, মৃত ব্যক্তিকে জীবিত বানিয়ে সম্পত্তি আত্মসাত, দলিল লেখার নামে অতিরিক্ত টাকা আদায় সহ বিভিন্ন অভিযোগ পাওয়া যায়। একটি জাতীয় দৈনিকে ভূমি অফিসের কর্মচারীর নিয়ে ছাপা হয়েছিল এভাবে, নোয়াখালীর চাটখিল উপজেলার পাঁচগাঁও ইউনিয়ন ভূমি অফিসের চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারীর বিরুদ্ধেসম্পত্তি জবরদখলের অভিযোগ পাওয়া গেছে। তার অত্যাচারে শিকারপূর্ব শোশালিয়া গ্রামের অর্ধশতাধিক ব্যক্তি নোয়াখালী জেলা প্রশাসক ও ইউএনও বরাবর লিখিত অভিযরগ করেছেন। অভিযোগে জানা যায়, উপজেলার পাঁচগাঁও ইউনিয়ন ভূমি অফিসের এমএলএসএস পূর্ব শোশালিয়া গ্রামের মোঃ সফিক উল্যা ভূমি অফিসে চাকরি করার সুবাদে দুর্নীতি ও প্রতারণার মাধ্যমে এলাকার নিরীহ লোকজনের জায়গা জমি জবরদখল করে আসছে। গ্রামের কেউ তার অন্যায়ের প্রতিবাদ করলে ওই ব্যক্তির জমি খাস জমি হিসেবে দেখানোর হুমকি দেয়। সফিকউল্যা সন্ত্রাসী দিয়ে গ্রামের আমিন উদ্দিন, আবদুর রহমান, শামিম, শাহিন, মহিন ও রায়হানদের দখলীয় সম্পত্তি জবর দখল করেন এবং গাছের ফলফলাদি লুট করে নিয়ে যায়। সফিক উল্যা অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমি ষড়যন্ত্রের শিকার। পাঁচগাঁও ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা মজিবুর রহমান অভিযোগ পাওয়ার কথা স্বীকার করেছেন। ইউএনও ও ভারপ্রাপ্ত সহকারী কমিশনার (ভূমি) এসএম শাহীন পারভেজ বলেন, বিষয়টি তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এছাড়া দৈনিক বাংলাবাজার পত্রিকায়ও চাটখিলে মৃত মহিলাকে জীবিত বানিয়ে সম্পত্তি আত্মসাত প্রসঙ্গে সংবাদ ছাপানো হয়েছে, সেখানে লিখা ছিল চাটখিল উপজেলার ৭নং হাটপুকুরিয়া ঘাটলাবাগ ইউনিয়নের পূর্ব গৌবিন্দপুর গ্রামের মৃত খায়রুল নেছা ও মরিয়মের নেছার মৃত্যুর পর ঐ গ্রামের মৃত আব্দুল মন্নানের ছেলে আবু ছায়েদ ভূইয়া মৃত ২ মহিলার পরিবর্তে জীবিত ২ মহিলাকে দাড় করিয়ে গত ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১১ তারিখে ৪৩৮৫ নং দলিলে চাটখিল সাব রেজিষ্ট্রার অফিসে ০৪.৫০ (সাড়ে চার শতাংশ) জমিন জাল দলিলের মাধ্যমে আতœসাৎ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। অভিযোগে জানা যায় পূর্ব গৌবিন্দপুর গ্রামের মৃত মোশারেফ হোসেনের পুত্র মোঃ জাকির হোসেন সাংবাদিকদের কাছে লিখিত ভাবে জানান গত ৫ বছর পূর্বে তার ফুফু খায়রুন নেছা এবং গত ০২/০৮/২০১১ইং তারিখ অপর ফুফু মরিয়মের নেছা মৃত্যু বরণ করেন। কিন্তু দলিল লিখক নুর হোসেন এর শলা পরামর্শে আবু ছায়েদ ভুইয়া গত ২৬/০৯/২০১১ তারিখে চাটখিল সাব রেজিষ্ট্রারী অফিসের সাব-রেজিষ্টার কে মোটা অংকের উৎকোচ দিয়ে অজ্ঞাত দুই মহিলাকে দাঁড় করিয়ে তাদেরকে খায়েরুন নেছা ও মরিয়মের নেছা পরিচয় দিয়ে জাল দলিল করিয়ে নেন। খোঁজ নিয়ে আরো জানা যায়, আবু ছায়েদ ভূইয়া ২দিন পর অর্থাৎ ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১১ তারিখে একই গ্রামের মৃত আমিন উল্যাহর পুত্র প্রবাসী বেল্লাল হোসেনের নিকট উক্ত সম্পত্তি বিক্রয় করেন। ঐ সময় প্রবাসী বেলাল হোসেন বিদেশে ছিল। বিক্রির পর বেলাল হোসেনের নামে জমা খারিজ ও করিয়ে নেন প্রতারক ভূমি দস্যু আবু সাঈদ ভূঁইয়া, লিখকসহ সাব-রেজিষ্টার এর সহযোগিতায়। অভিযোগে আরো উল্লেখ করা হয়, চাটখিল ভূমি অফিস এর অর্ন্তগত ২১২নং বিএস ৮২নং গৌবিন্দপুর মৌজা এস এস ১৪৯ নং খতিয়ান বি এস ৩৫৭ ও ৪৩২ নং চূড়ান্ত খতিয়ান ভুক্ত। সি এস এস ৬৯৪ নং দাগ বিএস ১২৯৩ দাগ রকম ভিটি ১২ শতাংশের অন্দরে ০৪.৫০ অর্থাৎ (সাড়ে চার শতাংশ) সম্পত্তি জাল দলিল করে খায়েরুন নেছা ও মরিয়মের নেছার মৃত্যুর পর আবু ছায়েদ ভূইয়া জাল দলিল করে নিয়ে ২ দিন পর পুনরায় মৃত মহিলাদের স্থলে জীবিত মহিলা দাড় করিয়ে একই সম্পত্তি বেল্লাল হোসেনের নিকট বিক্রিয় করে দেয়। এ ব্যাপারে চাটখিল উপজেলা সাব-রেজিষ্টার এর মুঠোফোনে যোগাযোগ করার জন্য একাধিক বার চেষ্টা করে ও তাকে পাওয়া যায়নি। এতসব অভিযোগের পরেও নিরব চাঁদাবাজি চলছে চাটখিল ভূমি অফিসে।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


News of your area

usericon

Be the First to Commnent

Also on chatkhil.com

fbnglkjhfkhjof
fgjhnghu
fbnglkjhfkhjof
fgjhnghu
fbnglkjhfkhjof
fgjhnghu
fbnglkjhfkhjof
fgjhnghu

প্রতিবেদন

Powered by চাটখিলবার্তা :: Designed and Developed By Colour Spray Ltd.