এইমাত্র পাওয়া খবর: 
রমজানের পবিত্রতা রক্ষা করুন, আপনার পাশে থাকা হতদরিদ্রদের সহযোগীতায় এগিয়ে আসুন-চাটখিলবার্তা পরিবার-০১৭১২২৩১৯১২, ০১৮৩১০১৬৭২০, ০১৭১০৬৪০৩৫৫  *  রমজানের পবিত্রতা রক্ষা করুন, আপনার পাশে থাকা হতদরিদ্রদের সহযোগীতায় এগিয়ে আসুন-চাটখিলবার্তা পরিবার-০১৭১২২৩১৯১২, ০১৮৩১০১৬৭২০, ০১৭১০৬৪০৩৫৫  *  চাটখিলবার্তা পড়ুন, চাটখিলের সকল খরব জানুন log in : www.chatkhilbarta.net যোগাযোগ করুন : ০১৭১২২৩১৯১২, ০১৮৩১০১৬৭২০ ইমেই করুন: news@chatkhilbarta.net
শিরোনাম: 
| ২২  সেপ্টেম্বর - ২০১৭

পৌরসভা » চলতি সংবাদ

চাটখিলে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম বাড়াতে দুর্ভোগে জনগন

Morning - 12:53 PM   Tuesday   2017-08-08

A- A A+

অাবদুল মোতালেবঃ চাটখিলে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম লাগামহীন ভাবে বেড়ে চলছে যা সাধারন মানুষের ক্রয় ক্ষমতার বাইরে। গত দু’সপ্তাহের ব্যবধানে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে ২০/২২ টাকা। গ্রামগঞ্জের বাজারগুলোতে আরো অধিক মূল্যে বিক্রি করছে নিত্যপন্যেগুলো। সব ধরণের সবজির বাজারে আগুন লাগায় ক্রয় ক্ষমতার বাইরে চলে গেছে সাধারণ মানুষের। টানা বৃষ্টি ও জলাবদ্ধতার কারণে দ্রব্যমূল্যের এ উর্ধগতি বলে দাবী ব্যবসায়ীদের। গত ২/৩ দিনে সবজির দাম বেড়েছে কেজি প্রতি ২০/২২ টাকা। সব ধরনের সবজি ৪৫ টাকা থেকে বেড়ে ৭০/৮০ টাকায় বিক্রি হতে দেখা যায়। বেগুন গত সপ্তাহে প্রতি কেজি ছিল ৪৫ টাকা বর্তমানে প্রতি কেজি ৬০/৬৫ টাকা বিক্রয় হচ্ছে। এ ছাড়া কাঁচা মরিচ, আলু, করলা, টমোটো, শিম, ঝিংগাসহ সব সবজির মূল্য দ্বিগুণ হয়েছে বলে জানিয়েছে সাধারন ক্রেতারা। ছোট-বড় বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা গেছে, দুই সপ্তাহের ব্যবধানে পেঁয়াজের দাম কেজিতে ২০/২২ টাকা বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৪০ টাকা দরে। বাজারে কাঁচা মরিচ প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ১২০/১৪০ টাকা দরে। এ ছাড়া প্রতি কেজি রসুন ১২০/১৩০ টাকা,আলু ২০/২২ টাকা, শীম ৮০/১০০, টমেটো ১০০/১৩০, শশা ৫০/৬০, চালকুমড়া মাঝারী পিচ ৪৫, পটল ৫০/৬০, ঢেড়স ৪৫/৫৫, ঝিঙ্গা ৪৫/৫৫, করলা ৭০/৮০, কাকরল ৪৫/৫০, পেঁপে ২৫/৩০, কচুমুখী ৩০/৩৫, কাঁচকলা হালি ২৫/৩০, লেবু হালি ২০/২৫, লাল শাক ১৫/২০ আঁটি, পুইশাক ২০/২৫ আঁটি টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। ৩/৪ টি মুদি পন্য ছাড়া গত সপ্তাহের দামেই স্থিতিশীল রয়েছে অধিকাংশ মুদিপণ্যের দাম। বাজারে প্রতি কেজি ছোলা ৮০ টাকা, মাসকলাই ৭৫/৮০ টাকা, মসুর ডাল ১২০/১৩০ টাকা, দারুচিনিসহ অন্যান্য পন্য। বেড়েছে আদা ১২০/১৩০, রসুন ১২০/১৩০, এলাচি ১৬০০, জিরা ৩৫০/৩৭০ টাকা। তবে ভোজ্য তেলের দাম আগের বাড়তি দামেই বিক্রি হচ্ছে। চালের বাজার ঘুরে দেখা গেছে, প্রকার ভেদে বস্তা প্রতি ৫০/১০০ টাকা কমে বিক্রি হচ্ছে। এ বাড়তি দামের কারন হিসাবে ব্যবসায়ীরা টানা বর্ষন, জলাবদ্ধতাসহ পাইকারী আড়ৎদারকে দায়ী করছেন। চাটখিল বাজারের সবজি ব্যবসায়ী মীর হোসেন জানান, আমাদের যে রকম ক্রয় সেই রকম বিক্রয়। আমরা কেজি প্রতি ২/৪ টাকা মুনাফার মাধ্যমে ক্রেতাদের কাছে বিক্রি করছি।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


News of your area

usericon

Be the First to Commnent

Also on chatkhil.com

fbnglkjhfkhjof
fgjhnghu
fbnglkjhfkhjof
fgjhnghu
fbnglkjhfkhjof
fgjhnghu
fbnglkjhfkhjof
fgjhnghu

পৌরসভা

Powered by চাটখিলবার্তা :: Designed and Developed By Colour Spray Ltd.